সার্চ করুন

বেদ হিন্দু ধর্মাবলম্বীদের সবচেয়ে প্রাচীন এবং পবিত্র একটি ধর্মগ্রন্থ। এটিকে বলা হয় অপৌরুষেও, যার অর্থ যা কোন মানুষের সৃষ্টি নয় বা, অলৌকিক। বেদ এর স্রষ্টা হিসেবে মহাভারতে ব্রহ্মার উল্লেখ পাওয়া যায়। বেদে সর্বমোট ২০৪৩৪ টি মন্ত্র আছে। বেদ চারটি-
  1. ঋগ্বেদ
  2. যজুর্বেদ
  3. সামবেদ
  4. অথর্ববেদ

বেদ সম্পর্কিত কিছু প্রশ্নের উত্তরঃ
  • বেদ শব্দের অর্থ কি?  
উত্তর: এটি সংস্কৃত শব্দ, এর অর্থ জ্ঞান। এটিকে বলা হয় শ্রুতি অর্থাৎ যা শোনা হয়েছে। আগেই বলেছি এই গ্রন্থকে অপৌরুষেও বলা হয়। এর আসলে কোন রচয়িতা নেই বলেই বিশ্বাসীরা মনে করে।
  • বেদ কত প্রকার? 
উত্তর: চারটি বেদের কথা ইতিমধ্যে আপনারা জেনেছেন। প্রত্যেকটিকে আবার ৪ ভাগে ভাগ করা হয়।এগুলো হচ্ছে- সংহিতা,আরণ্যক, ব্রাহ্মণ এবং উপনিষদ। কেউ কেউ ৫ নম্বর বিভাগ হিসেবে উপাসনাকে তুলে ধরেন। 
বেদে অবিশ্বাসীদের নাস্তিক বলা হয়। চার্বাক, জৈন, বৌদ্ধ এরা বেদে অবিশ্বাসী হলেও হিন্দু ধর্মাবলম্বীদের সাথে এদের দর্শনে মিল খুজে পাওয়া যায়।  কেউ কেউ দাবি করেন বেদ আসলে চারটি নয়, পাচঁটি। মহাভারত, নিত্যশাস্ত্র এবং কিছু পুরানকে তারা যুক্ত করে। ভলতেয়ার বেদের ভক্ত ছিলেন, তিনি বলেছেন-
The Veda was the most precious gift for which the West had ever been indebted to the East 

logoblog

No comments:

Post a Comment

লেখাটি যদি পড়ে থাকেন, তাহলে আপনার মন্তব্য প্রত্যাশা করছি। সমালোচনা, পরামর্শ কিংবা, প্রাসঙ্গিক যেকোন মত প্রকাশকে আমরা স্বাগত জানাই।